সর্বশেষ সংবাদ

সাদুল্যাপুর উপজেলা লকডাউনের সিদ্ধান্ত অনুমোদন দেয়নি জেলা কমিটি

গোবিখবর ডেস্ক:
গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলাকে লকডাউনের উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুমোদন দেয়নি জেলা কমিটি। রোববার দুপুরে সাদুল্যাপুর উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি উপজেলাকে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয়। উপজেলা কমিটির সভাপতি ও সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নবীনেওয়াজ অনুমোদনের জন্য গাইবান্ধার জেলা প্রশাসকের কাছে চিঠি পাঠান। চিঠির অনুলিপি সিভিল সার্জন ও পুলিশ সুপারকেও দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, গত ১১ মার্চ সাদুল্যাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের হবিবুল্লাহপুর গ্রামের কাজল মন্ডলের বোনের একটি বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানে করোনা সংক্রমন নিয়ে দুইজন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী অংশ নেয়। ওই অনুষ্ঠানে ৪০০-৫০০ মানুষ দাওয়াতপ্রাপ্ত হয়ে উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে গত ২১ মার্চ গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিয়ে অনুষ্ঠানে দাওয়াতপ্রাপ্ত অনির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষ ভোট প্রদান করেছেন। এ অবস্থায় ভাইরাসটি দ্রুত সংক্রমন ঘটতে পারে। ফলে উপজেলার সাধারন মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে রোববার সাদুল্যাপুর উপজেলা লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয় উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি। তবে উপজেলা কমিটির এই সিদ্ধান্তকে গাইবান্ধা জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কমিটির এই সিদ্ধান্ত অনুমোদন দেননি। এই ঘটনায় জেলা জুড়ে চরম আতংক বিরাজ করছে।

এ প্রসঙ্গে গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন বলেন, গাইবান্ধায় আমেরিকা ফেরত দুইজনের মধ্যে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। তবে সাদুল্যাপুর উপজেলাকে লকডাউনের বিষয়টি ভুল বোঝাবোঝি হয়েছে।

এদিকে আমেরিকা থেকে আসা দুইজন কাজল চন্দ্র মন্ডলের বাড়ীতে ১১ ও ১২ মার্চ অবস্থান করে। ১৩ মার্চ বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ খেয়ে গাইবান্ধা শহরের খাঁ পাড়ায় নিজ বাড়ীতে চলে যান। পরবর্তী বিষয়টি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের নজরে এলে তাদের দুইজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। পরে তাদের দুইজনের নমুনা ঢাকায় রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়। রোববার সকালে ঢাকা আইইডিসিআর থেকে জানানো হয় ওই দুই জনের নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নবীনেওয়াজ জানান, উপজেলা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুমোদনের জন জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভাপতি গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকের নিকট পাঠানো হয়েছে। গাইবান্ধা জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কমিটির সদস্য সচিব সিভিল সার্জন এসএম আবু হানিফ বলেন, বিষয়টি নিয়ে অলোচনা চলমান আছে।

Comments

comments

Leave a Reply