সর্বশেষ সংবাদ

ধামইরহাটে প্রতিষ্ঠার ২০ বছর পর কমিউনিটি ক্লিনিকে সফলভাবে নরমাল ডেলিভারী সম্পন্ন


মো.হারুন আল রশীদ ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
নওগাঁর ধামইরহাটে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠার ২০ বছর পর সফলভাবে নরমাল ডেলিভারী সম্পন্ন হয়েছে। গ্রামের অসহায় গর্ভবতী মা সহজ ও নিরাপদে নিজ গ্রামে বাচ্চা প্রসব করতে পেয়ে খুশি এলাকাবাসী। এতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ উপজেলার সকল ইউনিয়নের কমিউনিটি ক্লিনিকে এ সেবা ছড়িয়ে দিতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

জানা গেছে,উপজেলার ধামইরহাট ইউনিয়নের অন্তর্গত ২নং ওয়ার্ডের নেউটা কমিউনিটি ক্লিনিকে গত বৃহস্পতিবার সকালে দিকে ওই গ্রামের মৃত রকিবুল ইসলামের মেয়ে গর্ভবতী রাজিয়া সুলতানা প্রসব ব্যথা নিয়ে আসে। তাৎক্ষনিক ওই কমিউনিটি ক্লিনিকের কমিউনিটি হেলর্থ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) মুন্নুজান খাতুন,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মিড ওয়াইফ নার্স মেহের নিগার এবং এলাকার ধাত্রী বিদ্যায় পারদর্শী রোকছানা পারভীনের সহায়তায় ওই মায়ের নরমাল ডেলিভারী করার প্রস্তুতি নেয়। সকাল সকাল ৮টার তাদের সফল প্রচেষ্টার রাজিয়া সুলতানা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার একটি মেয়ে সন্তান জন্ম দেন। খবর পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শিশু চিকিৎসক ডা.সামিউল আলম ঘটনাস্থলে গিয়ে মা ও নবজাতক শিশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন। বর্তমানে মা ও নবজাতক দুজনই সুস্থ্য রয়েছে। রাজিয়া সুলতানার এটি দ্বিতীয় সন্তান। এদিকে ওই কমিউনিটি ক্লিনিকে কোন টাকা ছাড়াই নিরাপদে নরমাল ডেলিভারী হওয়ার ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসীর মাঝে বেশ উৎসাহ দেখা যায়। এব্যাপারে নেউটা গ্রামের মোশারফ হোসেন বলেন,বাড়ীর কাছে কোন খরচ ছাড়াই নিরাপদে গর্ভবতী মায়ের সন্তান প্রসব নিঃসন্দেহে স্বাস্থ্য বিভাগের একটি বড় অর্জন।

এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন,গত দুই আড়াই মাস আগে এ উপজেলার যোগদানের পর কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিদের সাথে বৈঠক করি। বৈঠকের সিন্ধান্ত মোতাবেক গর্ভবতী মাদের নরমাল ডেলিভারী যাতে কমিউনিটি ক্লিনিকে করা যায় তার পুরো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এর সুফল হিসেবে এ নরমাল ভেলিভারী সম্পন্ন হয়েছে। ওই কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি মুন্নাজান খাতুন ধাত্রী বিদ্যার উপর ছয় মাসের কমিউনিটি স্কীল বার্থ এ্যাটেনডেন্ট (সিএসবিএ) কোর্স সম্পন্ন করেছেন। উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে মোট ২১টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে এর মধ্যে ১৪ জন সিএইচসিপি মহিলা। ১৪ জনের মধ্যে দুই জনের ধাত্রী বিদ্যার ছয় মাসের কমিউনিটি স্কীল বার্থ এ্যাটেনডেন্ট ট্রেনিং নেই। বাকী দুইজনের নাম ট্রেনিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন,৮টি ইউনিয়নের ৮টি কমিউনিটি ক্লিনিকে নরমাল ডেলিভারী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যাতে এলাকার মানুষ তাদের দোড় গোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পেতে পারে।

নওগাঁর সিভিল সার্জন ডা.আঃ মঃ আখতারুজ্জামান বলেন,উপজেলার তৃণমূল পর্যায়ে এ রকম নিরাপদ নরমাল ভেলিভারী নিঃসন্দেহে ধামইরহাটবাসীর জন্য একটি ভালো খবর। প্রতিষ্ঠানে গিয়ে গর্ভবতী মা বাচ্চা প্রসব করলে মা ও শিশুর মৃত্যু ঝুঁকি কম থাকে। আমরা সকল মাকে এসব কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে বাচ্চা প্রসবের পরামর্শ দিয়ে থাকি। এ উপজেলার অন্যান্য কমিউনিটি ক্লিনিকে নরমাল ডেলিভারী করতে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সকল প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comments

comments