সর্বশেষ সংবাদ

সাঘাটায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন কারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে


নুর হোসেন রেইন, সাঘাটা (গাইবান্ধা) থেকেঃ
গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন কারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। কোনোমতেই থামছে না, তাদের এই বালু ব্যবসা।

সরেজমিনে বৃহস্পতিবার এলাকায় গিয়ে জানাযায় যায়, উপজেলার জুমারবাড়ী ইউনিয়নের মালেনদহ ব্রিজ সংলগ্ন নদী থেকে দুটি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন করে জমা করে তা কাঁকড়া গাড়িযোগে বিক্রি করে চলেছেন দুই ব্যক্তি। গত এক মাস পূর্বে প্রশাসন মেশিন দুটি ভেঙ্গে দিলেও নতুন করে ক্রয় করে আবার এই ব্যবসায় নেমেছেন তারা।

অপরদিকে, সাঘাটা সদর, হাট ভরতখালী সামনে, হলদিয়া সাবেক বাজার সংলগ্ন যমুনা নদী থেকে স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা ড্রেজার মেশিন বসিয়ে নদী থেকে বালু উত্তোলন করে জমা করে তা কাঁকড়া গাড়ি যোগে বিক্রি করছেন।

এছাড়া, পদুমশহর ইউনিয়নের স্কুল বাজার টু নয়াবন্দর সড়কের, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশে ১০০ গজ দূরে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।

পদুম শহর মাঝিপাড়া সন্ন্যাস দহ নদীতে ওই এলাকার আবু তাহের, আবুল হোসেন ও পিপুল মিয়া, ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এতে রাস্তা ও ঘরবাড়ি দেবে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন গ্রামবাসী। ঘুড়িদহ ইউনিয়নের তেনাচিরা বিলে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উওোলন করছে। সুজাল পুরে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।

এ ব্যবসায় অধিক লাভ হওয়ায়, এসব বালু ব্যবসায়ীরা কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছেন। তাই এ পেশা ছাড়তে নারাজ তারা, সরকারিভাবে মাটির নিচ থেকে ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলন অবৈধ হলেও আইনকে তারা বৃদ্ধাঙ্গগুলি দেখিয়ে, দাপটের সাথে বালু উত্তোলন করে চলেছেন।

সাঘাটা উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ সাকিল আহম্মেদ এ উপজেলায় যোগদান করার পর থেকেই বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারী চক্রদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ায় একদিকে যেমন সরকারি সম্পদ রক্ষা হচ্ছে, অন্যদিকে নদীর তীরবর্তী এলাকার জমি ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে।

Comments

comments

Leave a Reply