সর্বশেষ সংবাদ

ধামইরহাটে কোটি টাকার কালী মন্দিরের জায়গা দখলের অভিযোগ


মোঃ হারুন আল রশীদ, ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
নওগাঁর ধামইরহাটে কোটি কোটি টাকার কালী মন্দিরের জায়গা দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। দখলদার কাছ থেকে জায়গা উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের নিকট অভিযোগ দায়ের করেছে মন্দির কমিটির লোকজন। বাধা দেওয়ার পর ওই জায়গায় ঘর তুলছে প্রভাবশালীরা।

ধামইরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার,থানা পুলিশ ও ধামইরহাট পৌরসভায় লিখিত অভিযোগে জানা গেছে,পৌর সদরের চকযদু মৌজার আরএস খতিয়ান নম্বর ৩১৪ এর ১ একর ৫৭ শতাংশ জমি ধামইরহাট বাজার নির্দয়া কালীমন্দিরের নামে। জমিটি ধামইরহাট হাটখোলার নিকটে এবং পাকা রাস্তা সংলগ্ন হওয়ায় অত্যান্ত মূল্যবান। কিন্তু দির্ঘদিন ধরে হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি অংশ ওই জমি ধীরে ধীরে দখল নেয়ার চেষ্টা করে। এই সম্পত্তি জবর দখল প্রক্রিয়ার সাথে জড়িত ধামইরহাট থানা পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রী রামজনম রবিদাস। তিনি নিজের দখল করার পর তার ছেলে রাজেন্দ্রনাথ রবিদাস,চাচাতো ভাই স›দ্বীপ রবিদাস,ভাগনে দিলীপ রবিদাস,বিমল কর্মকার,আরতি কর্মকার,বাবু তেওয়ারী এবং শরিফ মন্ডল টিন এবং ইট দিয়ে ঘর নির্মাণ করছে। কালীমন্দির কমিটির সেক্রেটারী সুমন সাহা বলেন,হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন নিয়ে অবৈধভাবে কালীমন্দিরের জায়গা দখলে বাধা দিতে গেলে উল্টো তাদেরকে মাদকের মামলা দিয়ে জেলে পাঠানো হুমকি দেয়। বিষয়টি নিয়ে নির্দয়া কালিমন্দির কমিটির সভাপতি শ্রী রাজেন প্রসাদ গত ৫ ফেব্রুয়ারী তারিখে ধামইরহাট পৌরসভায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এ নিয়ে গত ৬ ফেব্রুয়ারী তারিখে পৌরসভায় সালিশী বৈঠক বসে। কিন্ত ওই বৈঠকে বিবাদীগণ উপস্থিত না হয়ে জমি দখলের চেষ্টা অব্যাহত রাখে। অবশেষে গত ১২ ফেব্রুয়ারী তারিখে কালীমন্দির কমিটির সম্পত্তি জবর দখল থেকে রক্ষা ও উদ্ধারের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানা পুলিশের নিকট আবেদন করে মন্দির কমিটি। কালীমন্দিরের জাগয়া দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে শ্রী রামজনম রবিদাস বলেন, এ দখল প্রক্রিয়ার সাথে তার কোন সম্পর্ক নেই। কিছু অসহায় হিন্দু ভাইয়েরা কিছু জায়গা দখল করেছে। পৈত্রিক সম্পত্তিতে আমার বসতবাড়ী রয়েছে। তারপরও গত বৃহস্পতিবার কতিপয় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোক আমার বাড়ীতে এসে আমাকে হুমকি ধামকি দেয়। আমি তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি।

এব্যাপারে ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.শামীম হাসান সরদার বলেন,দুই পক্ষের কাছ থেকে পৃথক দুটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়গুলো তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার গনপতি রায় বলেন,কালীমন্দিরের জায়গা কেউ ব্যক্তিগতভাবে ভোগ দখল করতে পারবে না। ওই জমি উদ্ধারের আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments

Leave a Reply