সর্বশেষ সংবাদ

সাতক্ষীরায় সড়ক দুর্ঘটনায় মাহেন্দ্র চালক নিহত

মোঃ মামুন হোসেন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা-খুলনা সড়কের পাটকেলঘাটায় মাহেন্দ্র উল্টে আব্দুস সামাদ মোড়ল (৫৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সোমবার ২৭ জানুয়ারি সকাল ৮ টার দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের হারুন-অর-রশিদ কলেজ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুস সামাদ মোড়ল পাটকেলঘাটা থানার ২নং নগরঘাটা ইউনিয়নের চকারকান্দা গ্রামের মৃত আছির মোড়লের ছেলে। তিনি এর দুই বছর আগে ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেল চালাতেন বর্তমানে তিনি পেশায় একজন মাহেন্দ্র চালক ছিলেন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত রাজিব হোসেন জানান, সাতক্ষীরা থেকে মাহেন্দ্র নিয়ে একা পাটকেলঘাটার উদ্দেশ্যে আসছিলেন আব্দুস সামাদ। পথিমধ্যে বিনেরপোতা বাইপাস সড়কের সামনে ট্রাফিক পুলিশ তাকে দাঁড়ানোর সিগন্যাল দেয় বলে জানতে পারি। তবে সিগন্যাল অমান্য করে আব্দুস সামাদ মাহেন্দ্র দ্রুত চালিয়ে পাটকেলঘাটার দিকে চলে আসেন। এ সময় তাকে পেছন থেকে ধাওয়া করে ট্রাফিক পুলিশ। দ্রুত গতিতে পালাতে গিয়ে হারুন-অর-রশিদ কলেজের পাশে এসে রাস্তার মধ্যে মাহেন্দ্রটি উল্টে যায়। এতে মাহেন্দ্রর নিচে চাপা পড়ে চালক সামাদ ঘটনাস্থলেই মারা যান।

এঘটনায় স্থানীয় চালকদের অভিযোগ পুলিশের ধাওয়ায় প্রাণ গেলো মাহেন্দ্র চালকের। দীর্ঘদিন যাবত চুকনগর হাইওয়ে ফাঁড়ির এসএসআই মাহমুদ অবৈধভাবে তাদের কাছে চাঁদা দাবি করে আসছে। চাঁদা না দেওয়ার আজ সকালে চুকনগর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসএসআই মাহমুদ মাহেন্দ্র চালকদের তাড়া করে। সেই সাথে সাধারণ জনগনের দাবি চুকনগর পুলিশ ফাঁড়ির এসএসআই মাহমুদের এহেন কৃতকর্মের যথাযথ শাস্তি হোক। মহাসড়কে সব ধরনের যানবাহনের কাগজপত্রাদি পরীক্ষা এবং সব ধরনের ট্রাক ও পিকআপে অবৈধ স্টীকার লাগিয়ে মাসোহারা আদায়ের নামে সীমাহীন চাঁদাবাজি ও জন হয়রানিসহ নানাবিধ অনৈতিক কর্মকান্ডের দায়ে শেষ কোথায়?

পাটকেলঘাটা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওয়াহিদ মোর্শেদ বলেন, স্থানীয়রা বলছেন পুলিশের ধাওয়া খেয়ে মাহেন্দ্র উল্টে চাপা পড়ে নিহত হয়েছেন সামাদ। তবে তদন্ত না করে এ ব্যাপারে বিস্তারিত বলা যাবে না।

এদিকে সাতক্ষীরার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর কামরুল ইসলাম বলেন, বিনেরপোতা বাইপাস সড়ক এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের কোনো সদস্য ছিল না। কারা ধাওয়া করেছে আমার জানা নেই।

নিহতের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান নগরঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান লিপু। পুলিশ প্রশাসনকে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলেন ও নিহত পরিবারের প্রতি শোক জ্ঞাপন করেন।

দুর্ঘটনায় নিহত সামাদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তির মৃত্যুতে বার বার সংগা হারাচ্ছেন তার স্ত্রী। নিহত সামাদের একটি কন্যা সন্তান ও একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

Comments

comments