সর্বশেষ সংবাদ

ধনবাড়ীতে কুয়াশায় নষ্ট হচ্ছে বোরোর বীজতলা

সৈয়দ সাজন আহমেদ রাজু, ধনবাড়ী (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে ঠান্ডা আর ঘন কুয়াশায় নষ্ট হচ্ছে বোরোর বীজতলা। ধনবাড়ী উপজেলায় গত সপ্তাহের কনকনে ঠান্ডা আর হিমেল হাওয়ায় চলমান মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ এবং ঘন কুয়াশার কারণে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বোরো ধানের বীজতলা চরম হুমকির মুখে পড়েছে। ইতোমধ্যেই উপজেলার বিভিন্ন এলাকার প্রায় ২৫ শতাংশ বীজতলা বিবর্ণ ধারণ আর ঠান্ডায় নষ্ট এবং পচন পর্যায়ে যাওয়ায় চলতি মৌসুমের বোরো ধানের রোপন নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে রোরো আবাদের চাষীরা। গত এক সপ্তাহে তাপমাত্রা উঠানামার সাথে দিনব্যাপী ঘন কুয়াশার কারণে জনজীবন প্রায় অচল হওয়ার পাশাপশি বহু বোরো বীজতলা কোল্ড ইনজুরির কবলে পড়েছে। হাঁড়কাপানো শীতের ঘন কুয়াশায় উপজেলার বেশির ভাগ বীজতলা হলুদ বর্ণ ধারণ করে পচন ধরার উপক্রম হয়েছে এবং চারাগুলো বড় হতে পারছেনা। এ অবস্থা থেকে প্ররিত্রাণের জন্য উপজেলা কৃষি বিভাগের সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকতা ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাগন এলাকার বীজতলাসমুহ পর্যবেক্ষণ করে নানা ভাবে পরামর্শ দিয়ে সহযোাগিতা করে যাচ্ছেন। তাতেও তেমন কাজ হয়নি। তবে আশার কথা, গতকাল থেকে শীত ও কুয়াশা কিছুটা কেটে গিয়ে রোদ উঠায় সম্ভাব্য ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবে বলে কৃষকরা আশাবাদী হয়েছেন। এ ব্যাপারে ধনবাড়ী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, গত কয়েকদিনের কনকনে ঠান্ডা, হিমেল বাতাস আর ঘন কুয়াশার কারণে উপজেলার কিছু বীজতলা সাদা বর্ণ ধারণ করে কোল্ড ইনজুরির কবলে পড়তে ছিল। আমাদের তড়িৎ পরামর্শ দান এবং আল্লাহর রহমতে শৈত্যপ্রবাহ এবং কুয়াশা কেটে গিয়ে তাপমাত্রা অনুকূলে আসায় এ যাত্রায় বিপদ কেটে গেছে। ক্ষতি তেমনটি হয়নি। ৩/৪ দিন রোদ থাকলে ইনশাল্লাহ সব ঠিক হয়ে যাবে। উল্লেখ্য, এবার ধনবাড়ী উপজেলায় বোরো ধান চাষের অর্জিত লক্ষ্যমাত্রা ১০ হাজার হেক্টরের উপরে হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে এবং সে প্রেক্ষিতে এবার ৪৮০ হেক্টরে বীজ তলা তৈয়ার করা হয়েছে।

Comments

comments