সর্বশেষ সংবাদ

রাজনীতি ছাড়ার সিন্ধান্ত ধাপেরহাট ছাত্রলীগ নেতা মামুনের

জিল্লুর রহমান পলাশ, গাইবান্ধা থেকে:
রাজনীতি ছাড়ার সিন্ধান্ত নিয়েছেন গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার ধাপেরহাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্যাহ আল-মামুন মন্ড ল। আনুষ্ঠানিকভাবে কোন ঘোষণা না দিলেও শনিবার (১৮ জানুয়ারী) সকাল ১১টার দিকে নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে এ বিষয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন তিনি।

রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত করে মুঠফোনে মামুন বলেন, ‘২০১৩ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু করে দীর্ঘদিন সাংগঠনিক নেতৃত্বে সক্রিয় ছিলেন। শতবাঁধা-বিপত্তি উপেক্ষা, ত্যাগ-শ্রমে ছাত্রলীগসহ আ’লীগ ও অঙ্গসংগঠনকে শক্তিশালি করতে চেষ্টা করেছি। দলের সিনিয়র থেকে জুনিয়ার অনেক নেতাকর্মীদের পাশে থেকে তাদের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠায় কাজ করেছি। বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আর্দশকে বুকে লালন করেই রাজনৈতিক কর্মকান্ডের জড়িত থাকলেও পারিবারিক কারণে রাজনীতি করা তার পক্ষে অনেকটা অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই স্বেচ্ছায় রাজনীতিতে পদত্যাগের সিন্ধান্ত নিয়েছি। বর্তমানে বাবা-মা ও পরিবারকে নিয়েই বাঁচতে চাই’।

ফেসবুকে দেয়া স্টাটাসে মামুন লিখেছেন ‘ধাপেরহাট ছাত্রলীগ তথা আওয়ামীলীগ পরিবারের রাজনীতি থেকে নিজের অপরাগতা ও পারিবারিক সমস্যার কারণে নাম প্রত্যাহার করে নিলাম। সাংগঠনিক বিষয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা না করতে এবং প্রয়োজনে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ যারা আছেন তাদের সাথে যোগাযোগের কথা জানান তিনি। সংগঠনের জন্য সবসময় শুভ কামনা জানিয়ে তিনি আরও লিখেছেন, ‘কারো প্রতি কোন অভিযোগ বা মন খারাপ করে নয়, আমার বাবা ও পরিবারের কারণে এই সিন্ধান্ত নিয়েছি। আমি আমার নিজের মতো সাধারণ মানুষ হয়ে থাকতে চাই। আমার একটাই পরিচয় ‘আমি মান্নান মন্ডলের সন্তান’।

এদিকে, রাজনীতি থেকে মামুনের সরে দাঁড়ানোর সিন্ধান্তে ফেসবুক স্টাটাসের বিষয়টি ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে করে জেলা, উপজেলা পর্যায়ের আ’লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে নানা আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। হঠাৎ করে মামুনের এমন সিন্ধান্তের কারণে ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও অনুসারীদের ক্ষোভ, হতাশ বিরাজ করছে। মামুনের দল ছাড়ার ঘোষণায় তরুণ ছাত্রলীগ নেতাদের হতাশসহ কষ্ট প্রকাশ করতেও দেখা গেছে। মামুনের দল ছাড়ার বিষয়টি অনেক নেতাকর্মী মেনে নিতে পারছেন না।

২০১৩ সালে লেখাপড়ার পাশপাশি আব্দুল্যাহ আল-মামুন ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী নির্বাচনের আগে ও পরে ধাপেরহাটে আন্দোলন-সংগ্রামে সক্রিয় নেতৃত্বেই রাজনৈতিক অঙ্গনে পরিচিতি অর্জন করে মামুন। ২০১৫-১৬ সালে ৬ নং ধাপেরহাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটির দায়িত্ব পালন করে মামুন। সর্বশেষ ২০১৬ সালে আব্দুল্লাহ আল-মামুন ধাপেরহাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। শুধু ছাত্রলীগ নয়, আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনকে শক্তিশালিসহ নানা আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথের লড়াইয়ে সক্রিয় ভূমিকা ছিলো মামুনের।

রাজনীতির মাঠে অল্প সময়ের পথপরিক্রমায় মামুনের হাত ধরে অনেক ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর জন্ম হয়। তরুণ ও উদীয়মান এই নেতা সাহস, মেধা ও পরিশ্রমী ছিলেন। তাছাড়া অন্যায়-অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকা করে মামুন দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনসহ হ্নদয়ে জায়গা করে নেয়। রাজনীতির পাশাপাশি খেলাধুলা চর্চা এবং সামাজিকসহ নানা কর্মমূখি তৎপরতায় মামুন স্থানীয়দের কাছে জনপ্রীয়।

Comments

comments