সর্বশেষ সংবাদ

গাইবান্ধায় শুভসংঘের কম্বল পেল শীতার্ত শিশু নারী পুরুষ

আরিফ উদ্দিন, স্টাফ রিপোর্টার, গাইবান্ধা থেকে: ‘বন্যার সময় হামার বাড়িঘর ধ্বসিয়া গেচে, কোনমতে সারাই করিয়া বেড়ার ঘরোত থাকি। এই শীতোত হুহু করিয়া বাতাস ঢোকে। হাড় হাড্ডি কাঁপি ওঠে। তোমরা হামার বড় উপকার করলেন। তোমারঘরের ভাল হোক।’ শুভ সংঘের দেয়া কম্বল হাতে বললেন শহরের নতুন ব্রীজ সংলগ্ন ব্রহ্মপুত্রপাড়ের মলিমা বেগম। একই এলাকার মৎস্যজীবি পরিবারের সাধনা রানী জানালেন, ’সরকারের দেয়া কম্বল তো আর সগল্যে পায় না। শীতত খুব কষ্ট! ম্যালা কাজে নাগব্যে এই কম্বল। তোমারঘরের পেপারের ভাল হোক।’ জেলা শুভ সংঘের উদ্যোগে নতুন করে শুরু হওয়া প্রবল শীতের এই সময়ে গাইবান্ধার বিভিন্ন এলাকার তিন শতাধিক শিশু নারী পুরুষের মধ্যে কম্বল বিতরনের সময় তারা বললেন এসব কথা। তাদের খুশিভরা মুখ দেখে শুভ সংঘের সদস্য দেবী সাহা জানাল, ’মানুষগুলোর মুখে হাসি দেখে তার মন ভরে গেছে।’

রবিবার দুপুরে স্থানীয় সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান সুরবাণী সংসদ চত্বরে কম্বল বিতরণ উদ্বোধন করেন গাইবান্ধা প্রেস ক্লাব সম্পাদক সাহিত্যিক আবু জাফর সাবু।এ সময় তার সাথে ছিলেন সাংবাদিক রিকতু প্রসাদ। বিতরণের আগে তিনি সবার উদ্দেশ্যে বললেন, ’শুভ সংঘের কর্মীদের কল্যানমূলক সব কাজ তার ভাল লাগে। বিশেষ করে এই শীতের সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তারা নিজস্ব উদ্যোগে সংগ্রহ করা কম্বল ধারাবাহিকভাবে বিতরণ করছে। এর মধ্যে বেশ ক’জন প্রতিবন্ধীও রয়েছে । এই দৃষ্টান্ত তরুণদের শুভ কাজে উৎসাহিত করবে।’

কম্বল বিতরণের সময় শুভ সংঘের কর্মকর্তা ও সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিপ্লব প্রসাদ, কামরুজ্জামান চান, আবদুল বারী, জাহিদ হাসান সবুজ , মমিন হক্কানী, কালের কন্ঠের প্রতিনিধি অমিতাভ।
সভাগুলোতে সংশি¬¬ষ্ট কমিটির সদস্য, ৭টি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা, র‌্যাব, বিজিবি, মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, জেল সুপারসহ জেলার সকল বিভাগীয় কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments

Leave a Reply