সর্বশেষ সংবাদ

গোবিন্দগঞ্জের আলোচিত সাঁওতাল হত্যা মামলা তদন্তের দায়িত্ব সিআইডিতে ন্যস্ত

মানিক সাহা, গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) থেকে:
গাইবান্ধার গোবিগঞ্জের আলোচিত সাঁওতাল হত্যা মামলা তদন্তের দায়িত্ব সিআইডির উপর ন্যস্ত করেছে আদালত । সোমবার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের বিচারক পার্থ চন্দ্র ভদ্র এই আদেশ দেন। এর আগে আদালত পিবিআই এর উপর তদন্তভার দেয়। সে অনুযায়ী পিবিআই তদন্তের পর ৯০জনকে আসামী করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করে। কিন্তু বাদী পক্ষ মূল আসামীদের আড়াল করার অভিযোগ এনে আদালতে পিবিআই তদন্তের বিরুদ্ধে নারাজি আবেদন জমা দেন। এরই প্রেক্ষিতে শুনানী শেষে আদালত মামলাটির পুণ:তদন্তের জন্য সিআইডিকে দায়িত্ব দেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর রংপুর সুগার মিলের সাহেবগঞ্জ বাণিজ্যিক খামারের জমি থেকে আদিবাসী সাঁওতাল উচ্ছেদ অভিযানে পুলিশের গুলিতে তিনজন নিহত হয়। এ ঘটনায় ওই সময় রামপুর মাহালীপাড়া গ্রামের মৃত সমেশ্বর মুরমু’র ছেলে শ্রী স্বপন মুরমু বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে গোবিন্দগঞ্জ থানায় মামলা করেন। একই ঘটনায় বুজরবেড়া আরোজী মিশনপাড়া গ্রামের মঙ্গল হেমব্রমের ছেলে থমাস হেমব্রম নামীয় আসামি করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেন। হাইকোর্টের নির্দেশে এজাহারটি গোবিন্দগঞ্জ থানা আমলে নেয়। পরবর্তীতে দুটি এজাহার একত্র করে তদন্ত সাপেক্ষে গাইবান্ধা পিবিআইয়ের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল হাই গত ২৩ জুলাই ৯০ জনের নাম উল্লেখ করে আদালতে চাজশির্ট দাখিল করেন। এতে গোবিন্দগঞ্জ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদসহ ১১ জন আসামির নাম বাদ দেয়া হয়। এ চার্জশীটের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে বাদীপক্ষ নারাজী জানালে আজ আদালত এ আদেশ দেন।

Comments

comments