সর্বশেষ সংবাদ

ঈদযাত্রায় যুক্ত হবে ভারত থেকে আনা ২৫০টি বাস

মির, ঢাকা সংবাদদাতা : ভারতীয় ঋণ কর্মসূচির আওতায় আনা ২৫০টি বাস ঈদযাত্রার বহরে যোগ হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সোমবার (৫ আগস্ট) ঈদুল আজহা উপলক্ষে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে এ কথা জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘জরুরি প্রয়োজনে যাতায়াতের জন্য আরও ৫০টি বাস প্রস্তুত থাকবে। পাশাপাশি পোশাক শ্রমিকদের যাতায়াতে ঢাকায় ১৫০টি আর চট্টগ্রামে ২০টি বাস বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, মন্ত্রণালয় থেকে একটি কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে দেশের সড়ক ব্যবস্থাপনা মনিটর করা হবে। এ কার্যক্রম ৬ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। এবার প্রায় সাড়ে এগারোশ বাস থাকবে বিআরটিসির ঈদ স্পেশাল সার্ভিসে।’ ঈদযাত্রার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় মনিটরিং কমিটি কাজ করবে, অভিযোগ পেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত ব্যবস্থা নেবে বলেও জানান সড়কমন্ত্রী।

বৈঠকে বন্যায় ভেঙে যাওয়া সড়ক ঈদের তিন দিন আগে মেরামতের নির্দেশ দেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘সড়ক-মহাসড়কে যত্রতত্র গরুর হাট বসানো যাবে না। যেকোনো উপায়ে দুর্ভোগ সহনীয় রাখতে হবে। ঢাকার প্রবেশ ও বের হওয়ার পথ যানজটমুক্ত রাখতে হবে। মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন গাড়ি যেন না চলতে পারে। একাধিক চালক নিয়োগ দিতে পরিবহন মালিকদের প্রতি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’ সড়ক-মহাসড়কে পশুবাহী গাড়ি যেন আটকে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে ট্রাফিক পুলিশদের অনুরোধ জানানো হয়।

‘যত ভিআইপিই হোক না কেন, কেউ যাতে উল্টো পথে যেতে না পারে সে ব্যাপারে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উল্টো পথে গাড়ি চলাচলের জন্যই সড়ক পথে বেশি যানজট হয়’, বলেন মন্ত্রী।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিগত কয়েক বছরে গাড়ি ভাড়া বাড়েনি, সেজন্য মৌসুমী ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয় বৈঠকে। সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ আমাদের আশ্বস্ত করেছেন, ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচলে তাদের পক্ষ থেকেও নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।’ পাশাপাশি অতিরিক্ত ভাড়া যাতে রাখা না হয় সেজন্য বলা হয়েছে। বাস টার্মিনালে সেবা ব্যবস্থাপনা আরও বৃদ্ধি ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে বাস ছাড়ার আগে স্প্রে করার কথাও জানানো হয়।

এছাড়া বৈঠকে ঈদের আগে তিন দিন মহাসড়কে ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান ও অন্যান্য ভারী যান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে রফতানিযোগ্য পণ্য, খাদ্য, ওষুধ, পচনশীল দ্রব্য, পশুবাহী, পশুবাহী গাড়ি এর আওতামুক্ত থাকবে বলেও জানান মন্ত্রী।

Comments

comments