সর্বশেষ সংবাদ

ধামইরহাট বাসীর প্রাণের দাবী ধামইরহাট-বগুড়া রুটের বিআরটিসি বাস চলাচল শুরু

All-focus

মো. হারুন আল রশীদ, ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি:
নওগাঁর ধামইরহাবাসীর প্রাণের দাবী ধামইরহাট-বগুড়া রুটে বিআরটিসি যাত্রীবাহী বাস সার্ভিস চালু হয়েছে। দীর্ঘদিনের দাবী পুরণ হওয়ার উপজেলার হাজার হাজার মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। তবে তাদের মাঝে আশংকাও কাজ করছে আবারও যেন কোন অজুহাতে বাস চলাচল বন্ধ না হয়ে যায়।

জানা গেছে, বুধবার সকাল ৭টায় উপজেলার আগ্রাদ্বিগুন বাজার থেকে ধামইরহাট-জয়পুরহাট-বগুড়া রুটে বিআরটিসির বাস চলাচল উদ্বোধন করেন স্থানীয় আগ্রাদ্বিগুন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি সালেহউদ্দিন আহমেদ। বাসটি প্রতিদিন ধামইরহাট থেকে সকাল ৭টা ৪০ মিনিটে বগুড়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে এবং বগুড়া থেকে বিকেল ৫টায় ধামইরহাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে। এদিকে এ বাস সার্ভিস চালু হওয়ার এলাকার হাজার হাজার মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। বগুড়া যেতে হলে আগে জয়পুরহাট গিয়ে বাস পরিবর্তন করতে হতো। এতে ব্যবসায়ীদের মালামাল বাস থেকে নামানো এবং অন্য বাসে ওঠাতে বেশ ভোগান্তি পোহাতে হতো। তাছাড়া কুলিরা তাদের ইচ্ছামত মজুরী আদায় করতো। রোগিদেরকে চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হতো। এব্যাপারে ধামইরহাট বাজারের ব্যবসায়ী মনোজ কুমার সাহা বলেন,সরাসরি বাস না থাকায় ব্যবসায়ীক কাজে বগুড়া যেতে বেশ ভোগান্তি পোহাতে হতো। দোকানের মালামাল নিয়ে ফেরার পথে দুই জায়গায় গাড়ী বদল ও অতিরিক্ত কুলি শ্রমিকদের মজুরি দিতে হতো। এখন সরাসরি বাস চালু হওয়ার খরচ অনেক কম হবে। শুভসংঘের উপজেলা কমিটির সম্পাদক আমজাদ হোসেন বলেন,চিকিৎসাসহ যে কোন কাজে এখন দিনের দিন বগুড়া গিয়ে কাজ সেরে বিকেলে বাড়ীতে ফেরা সহজ হলো। তবে আশংকা প্রকাশ করে ব্যবসায়ী রনজিৎ প্রসাদ ও সাখাওয়াত হোসেন সাগর বলেন,আবারও যেন কোন অজু হাতে বাস চলাচল বন্ধ না হয়ে যায় সেদিকে প্রশাসনকে সর্তক দৃষ্টি দেয়ার জোর দাবী জানান। বিআরটিসি বাস সার্ভিসের ধামইরহাট কাউন্টারের স্বত্বাধিকারী মো.শিপন চৌধুরী বলেন, জনগণের ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে অনেক কষ্ট করে প্রশাসন,মোটর মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সহযোগিতায় এ সার্ভিস চালু করা সম্ভব হয়েছে। উল্লেখ্য বগুড়া থেকে ধামইরহাট রুটে সরাসরি বিআরটিসি বাস সার্ভিস চালু ছিল। কিন্ত প্রায় ৬ বছর পূর্বে মোটর মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের বিরোধিতার কারণে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

Comments

comments