সর্বশেষ সংবাদ

সরিষাবাড়ীতে গ্রামবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমে কাঠের সেতু নির্মাণ

রাইসুল ইসলাম খোকন, সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি:
বন্যা কবলিত বানাভাসি হাজারও মানুষের যাতায়াতের চরম দুর্ভোগ কমাতে সে¦চ্ছাশ্রমে নির্মিত হয়েছে পাকা সড়কের উপর কাঠের সেতু।

সরেজমিনে দেখা যায়, জামালপুরের সরিষাবাড়ীর উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের মালিপাড়া গ্রামের মধ্য দিয়ে কাজিপুর উপজেলার যাতায়াতের এক মাত্র সড়ক। এই সড়কটি কাজিপুর উপজেলার দুইটি ইউনিয়ন মনসুরনগর ও চরগিরিশ যমুনা নদীর তীরে সরিষাবাড়ী উপজেলার সীমানা ঘেষে অবস্থিত । এ দুটি ইউনিয়নে মানুষ যমুনা নদী পারাপারে দুর্ভোগ কমাতে সরিষাবাড়ী উপজেলার সাথে নিবিড় সম্পৃক্ত। কাজিপুর উপজেলার দুটি ও সরিষাবাড়ী উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের হাজারও মানুষের প্রতিটি মুহুর্তে প্রয়োজন ওই সড়কটি। চলতি বন্যার শুরুতেই মালিপাড়া গ্রাম এলাকায় পানির ¯্রােতে ৯০ ফিট এলাকা নিয়ে পাকা সড়কটি ভেঙ্গে যায়। ফলে বানভাসি তিনটি ইউনিয়নের মানুষের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। সরিষাবাড়ী উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়া দুটি উপজেলার তিনটি ইউনিয়নের মানুষের শহরের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ যাতায়াতের দুর্ভোগ কমাতে কাঠ দিয়ে সেতু তৈরীর উদ্যোগ নেয় মনসুরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও পোগলদিঘা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সামস উদ্দিন। এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে প্রতিটি গ্রামের শিশু, বৃদ্ধ, যুবক, শ্রমিকসহ নানা পেশাজীবি মানুষ সেচ্ছাশ্রমে এগিয়ে আসেন। পোগলদিঘা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সামস উদ্দিন ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় ৯০ ফিট লম্বা ২০ ফিট উচ্চতায় ১০ ফিট প্রসস্থ কাঠ দিয়ে সেতু তৈরীর কাজ শেষ করেছেন এলাকাবাসী।

শিক্ষার্থী মুহিতুল ইসলাম জানায়, বন্যার পানি কমে গেলেও সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ায় স্কুলে যেতে পারি না। অনেক ঝুকি নিয়ে নৌকা বা ভেলা দিয়ে পারাপার হতে হয়। তাই এ ভোগান্তি দূর করতে নিরাপদ পাড়াপাড়ের জন্য কাঠ দিয়ে সড়কের উপর সেতু তৈরী করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী এলাকাবাসী দৌলতুজ্জামান কালু(ইউপি সদস্য), স্বাধীন মিয়া, সাগর, রুবেল , লিটনসহ একাধিক গ্রামবাসী বলেন, বন্যায় পাকা সড়কটি হঠাৎ ভেঙ্গে যাওয়ায় আমাদের যাতায়াতের কষ্ট বেড়ে যায়। হাট বাজারে মালামাল বহন করতে যানবাহন অতি প্রয়োজন। তাই এলাকাবাসী সেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে রিক্সা, ভ্যান, সাইকেল, মটর সাইকেলসহ পন্যসামগ্রী নিয়ে যাতায়াত এবং শিশু ও বৃদ্ধ মানুষের পারাপারে চরম দুর্ভোগ লাঘব করতে সেচ্ছাশ্রমে কাঠ দিয়ে মজবুত সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।

এ ব্যপারে পোগলদিঘা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সামস উদ্দিনের বলেন, মনসুরনগর ও চরগিরিশ দুটি ইউনিয়নের মানুষ সরিষাবাড়ী উপজেলায় নিত্য দিনের সম্পৃক্ত। যত্রতত্র মুর্মুষ রোগী নিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে সরিষাবাড়ী সদরে যাওয়া যায়। এবছর বন্যায় সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ার তিনটি ইউনিয়নের হাজারও মানুষের যাতায়াতের দুর্ভোগ লাঘব করতে মনসুর নগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাকের সহযোগিতায় কাঠের সেতু নির্মান করে যাতায়াতে ভোগান্তি থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষা করা হয়েছে।

এ ব্যপারে সরিষাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব উদ্দিন আহমদ বলেন, সরিষাবাড়ী ও কাজিপুর উপজেলার যোগাযোগের প্রধান সড়কটি পোগলদিঘা ইউনিয়নের মালিপাড়া এলাকায় বন্যার পানিতে ভেঙ্গে যাওয়ায় পারাপারে বিঘ্ন হওয়ার গ্রামবাসীরা স্বেচ্ছাশ্রমে একটি কাঠের ব্রীজ নির্মাণ করেছে। তাদের এই কাজকে আমরা সাধুবাদ জানাই। এছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে পুনরায় যেন সেখানে একটি ব্রীজ নির্মান করা হয় সে বিষয়ে কথা বলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments

Leave a Reply