সর্বশেষ সংবাদ

শৈলকুপায় বনবিভাগের কর্মকর্তার যোগসাজসে বনায়নের গাছ প্রকাশ্যে কেটে নিচ্ছে দুর্বৃত্তরা

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের শৈলকুপায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কেনেলের জায়গায় বনবিভাগের বনায়নকৃত গাছ প্রকাশ্যে কেটে নিচ্ছে স্থানীয় একটি দুর্বৃত্তচক্র। এ চক্রের মুল হোতা রতনপুর গ্রামের সিদ্দিক খাঁর ছেলে রাকিব উদ্দিন খান। সে দীর্ঘ দিন ধরে এলাকায় একটি সন্ত্রাসী বাহীনি গড়ে তুলে রাস্তা ও খালের পাশের বনবিভাগের এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, শনিবার প্রকাশ্যে কচুয়া-হড়লা কেনেলের গাছ কেটে চড়ইবিল বাজারের একটি স’মিলের পাশে রাখা হলে বনবিভাগের সদস্যরা পুলিশের সহায়তায় বেশ কয়েকটি গাছ উদ্ধার করেছে। এব্যাপারে বনায়নের উপকারভোগী সমিতির পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করেছে তবে দুর্বৃত্তচক্রের কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। সরেজমিনে দেখা গেছে, শৈলকুপা বনবিভাগ বনায়নের আওতায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কেনেলের বিভিন্ন স্থানে চুক্তিভিত্তিক গাছ লাগিয়েছে। এলাকাভিত্তিক স্থানীয় মানুষ সমিতির মাধ্যমে এসব গাছ পরিচর্যা করে আসছে। তারা এসব রোপনকৃত গাছের ৫৫% পাবে উপকারভোগী হিসাবে। শৈলকুপার কচুয়া হতে হড়লা পর্যন্ত কেনেলের ৬কিলোমিটার জুড়ে এইচএকে নামের একটি সমিতির বনায়নকৃত মুল্যবান নানা জাতের গাছ রয়েছে। এসব গাছের মধ্যে বাবলা, রেইনট্রি কড়ই, আকাশমনি নামের গাছ রয়েছে। এক যুগেরও বেশী সময় আগে লাগানো এসব গাছ কখনো রাতের আঁধারে আবার কখনো প্রকাশ্যে কেটে নিচ্ছে স্থানীয় দুর্বৃত্তচক্র। এসব চক্র এলাকায় নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথেও জড়িত বলে ভয়ে অনেকে তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলে না। এই সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্ত চক্রের সদস্য রতনপুর গ্রামের সিদ্দিক খাঁর ছেলে রাকিব, একই গ্রামের সাবদার খাঁর ছেলে টিক্কা, লিয়াকতের ছেলে আকুল, গফুর জোয়ার্দ্দারের ছেলে সরোয়ার, সহ বেশ কয়েকজন শনিবার প্রকাশ্যে কচুয়া-হড়লা কেনেলে বনায়নকৃত বেশকিছু বাবলা গাছ কেটে নেয়। তারা এই গাছ শৈলকুপার চড়–ইবিল বাজারে আনসার উদ্দিন মাস্টারের স’মিলের পাশে রেখে দেয় বিক্রির জন্য। পরদিন রবিবার দুপুরে এইচএসকে সমিতির সদস্যরা মিলের পাশ থেকে ৪টি বাবলা গাছ উদ্ধার করে। মিলটির মালিক জানান কে বা কাহারা এসব গাছ রেখে গেছে তা জানেন না। পরে পুলিশ বনবিভাগ ও সমিতির সদস্যদের সহযোগীতায় সেখান থেকে গাছগুলি থানায় নিয়ে আসে। এদিকে প্রকাশ্যে গাছ কাটার সাথে জড়িতদের কয়েকজন এই উপকারভোগী সমিতির সদস্য রয়েছে, যাদের সংগঠন থেকে বহিস্কার করা হবে বলে জানান সমিতির সভাপতি ইরাজ আলী। বনবিভাগের কর্মকর্তা শৈলকুপা উপজেলা ফরেস্টার নুরুন্নবি জানান, বনায়নকৃত গাছ উপকারভোগী সমিতি দেখভাল করে, এই গাছ অবৈধভাবে যারা কেটেছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেয়া হবে। শৈলকুপা থানার এএসআই শরিফুল ইসলাম জানান, গাছগুলি উদ্ধার করা হয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এলে পুলিশ ব্যবস্থা নিবে বলে জানান শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রহমান।

Comments

comments