সর্বশেষ সংবাদ

ধামইরহাটের কলেজগুলোর এইচএসসির ফলাফল হতাশাজনক

মো.হারুন আল রশীদ, ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
নওগাঁর ধামইরহাটের সাধারণ কলেজগুলোর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল হতাশাজনক। অন্যদিকে মাদ্রাসার আলিম ও কারিগরি শাখার ফলাফলে অভাবনীয় সাফল্য এসেছে। সচেতন অভিভাবক মহলের প্রশ্ন তাহলে কি সাধারণ কলেজগুলোর শিক্ষার্থীরা মেধাবী নয়।

জানা গেছে,চলতি বছরের উচ্চ মাধ্যমিক,মাদরাসার আলিম ও বিএম কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শাখার সদ্য প্রকাশিত পাবলিক পরীক্ষার ফলাফলে সাধারণ কলেজ ও মাদরাসা এবং কারিগরি শিক্ষার্থীর ফলাফলে ব্যাপক পার্থক্য লক্ষ্য করা গেছে। কলেজগুলোর পাসের হার বোর্ডের হারের ধারে কাছেও নেই। অথচ মাদরাসার আলিম ও কারিগরি ফলাফল অবাক করার মতো। ধামইরহাট সরকারী এম এম ডিগ্রী কলেজে ৫২ দশমিক ১৯.ধামইরহাট মহিলা ডিগ্রী কলেজে ৫০ দশমিক ৮১,আড়ানগর জাহাঙ্গীর আলম মেমোরিয়াল কলেজে ৩৮ দশমিক ২৬,জগদল আদিবাসী স্কুল ও কলেজে ৪৫ দশমিক ৬১,মঙ্গলবাড়ী শহীদ আব্দুল জব্বার বালিকা স্কুল ও কলেজে ৬৬ দশমিক ৬৭,মঙ্গলবাড়ী সিরাজিয়া স্কুল ও কলেজে ৪২ দশমিক ৮৬,পোড়ানগর মডেল কলেজে ৩৩ দশমিক ৩৩ এবং আগ্রাদ্বিগুন কলেজে ৬৬ দশমিক ১৮ ভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। ৮টি কলেজ থেকে কোন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পায়নি। এদিকে কারিগরি শাখার ফলাফল ঈর্ষান্বিত। জগদল আদিবাসী স্কুল ও কলেজের বিএম শাখার উচ্চ মাধ্যমিকে ৮২ জনের পাস করেছে ৮১ জন,ধামইরহাট সিদ্দিকীয়া ফাজিল মাদ্রাসার বিএম শাখার ৭৮ জনের মধ্যে পাস করেছে ৭২ জন,ধামইরহাট টেকনিক্যাল কলেজের ৫১ জনের মধ্যে পাস করেছে ৪৯ জন। এসব ৩টি কারিগরি কলেজের ফলাফল অভিভাবক ও সচেতন মহলকে ভাবিয়ে তুলেছে। অপর দিকে মাদরাসার আলিম ফলাফলও অভাবনীয়। মাহমুদ ফাজিল মাদ্রাসার ১২ জনের মধ্যে পাস করেছে ১২জন,রুপনারায়ণপুর ও কোকিল সম্মিলিত আলিম মাদরাসা থেকে ১৬ জনের মধ্যে পাস করেছে ১৬জন,ধামইরহাট ছিদ্দিকীয়া ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪২ জনের মধ্যে পাস করেছে ৪১জন,সেননগর আলিম মাদরাসা থেকে ১১ জনের মধ্যে ১১জন পাস,রঘুনাথপুর কামিল মাদরাসা থেকে ২৯ জনের মধ্যে ২৭ জন পাস করেছে,পাগল দেওয়ান ফাজিল মাদরাসা থেকে ২৬ জনের মধ্যে ২৩ জন,বড়থা ডিআই ফাজিল মাদরাসা থেকে ২০ জনের মধ্যে ১৮,বাসুদেবপুর ও দূর্গাপুর আলিম মাদরাসা থেকে ১৬ জনের মধ্যে ১১ জন পাস করেছে। মাহমুদপুর ফাজিল মাদরাসা,সেননগর আলিম মাদরাসা এবং কোকিল রুপনারায়ণপুর আলিম মাদ্রাস থেকে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। এলাকার সুধীমহল ও সচেতন অভিভাবকদেরকে মাদরাসা ও কারিগরি শাখার ফলাফল ভাবিয়ে তুলেছে। যেখানে সাধারণ কলেজের শিক্ষার্থীদের পাসের গড় হার ৫০ ভাগ সেখানে ওই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাস হারের শতভাগ। তাহলে কি সাধারণ কলেজের শিক্ষার্থীরা মেধাবী নয়? আগামীতে বিষয়টি খতিয়ে দেখা এবং পরীক্ষা চলাকালে নজরদারী বাড়ানো দরকার বলে অভিজ্ঞ মহল মত পোষন করেছেন।

Comments

comments