সর্বশেষ সংবাদ

টাঙ্গাইলে দুই সহপাঠীর বাবা দ্বারা ধর্ষিত ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

হাফিজুর রহমান, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে সহপাঠীর বাবা দ্বারা ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সোমবার সকালে ঘাটাইল থানায় ওই ছাত্রীর মা বাদি হয়ে ২জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন ।

পরে পুলিশ দুইজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করলে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

গ্রেপ্তারকৃত দুই আসামি উপজেলার লোকের পাড়া ইউনিয়নের দশআনি বকশিয়া গ্রামের সোহরাব আলীর ছেলে আলমগীর হোসেন (৩৫),ও একই গ্রামের মৃত আমীর আলীর ছেলে আব্দুল হামীদ (৪২)।

জানা যায়, বর্তমানে ওই ছাত্রী মানসিকভাবে অসুস্থ থাকায় ও ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের গাইনি বিভাগে ভর্তি রয়েছে। চিকিৎসা কার্যক্রম শেষে আদালতে তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে।

ধর্ষনের শিকার ওই ছাত্রী জানান, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় অতিরিক্ত টিভি দেখা ও পড়াশুনা ঠিকমতো না করায় শাসন করেন মা। পরে অভিমান করে ঘর থেকে বের হয়ে এক আত্মীয়ের বাড়ীতে যাওয়ার জন্য বের হই । কিছুদুর যাওয়ার পর পথে দেখা হয় দুই সহপাঠীর বাবা আলমগীর হোসেন ও হামিদের সাথে। পরে কিছু বুঝে উঠার আগেই তারা মুখ ও হাত গামছা দিয়ে বেঁধে একটি ভ্যান গাড়ীতে তুলে নির্জন একটি মাঠে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর নির্যাতনে ওই ছাত্রী অচেতন হয়ে পড়লে তাকে মাঠে রেখেই পালিয়ে যায় ধর্ষকরা। পরে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে অজ্ঞান অবস্থায় মাঠ থেকে উদ্ধার করে বাড়ীতে নিয়ে আসে ওই ছাত্রীকে । পরে জ্ঞান ফিরলে পরিবারের কাছে ঘটনাটি জানায় সে।

ওই ছাত্রীর মা জানান, ধর্ষকরা প্রভাবশালী হওয়ায় ও সমাজপতি চাপে প্রথমে মামলা না করলেও পরে ঘটনা জানাজানি হলে সোমবার সকালে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এদিকে মামলা করায় অভিযুক্ত পরিবার থেকে বিভিন্ন হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন ছাত্রীটির মা ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এনামুল কবির চৌধুরী জানান,মামলার পর অভিযুক্ত আসামীদের গ্রেফতারের পর আদালতে হাজির করে ৭দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ২ আসামিকে ৩দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তবে ধর্ষতার পরিবারকে হুমকির বিষয়টি আমার জানা নেই । যদি এরকম কোন কিছু হয় তবে তাদের সকল প্রকার আইনগত সহায়তার দেয়া হবে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের ধনবাড়ী পৌর শাখা’র সাধারণ সম্পাদক রাজীব ভদ্র অপু জানান, ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে তার দুই সহপাঠির বাবা দুজনে তাকে ধর্ষণ করেছে। পুলিশ অভিযুক্তদের কে গ্রেপ্তার করেছে। বর্তমানে মানুষের মধ্যে নৈতিকতা ও মানবিকতার অভাব রয়েছে। এই ঘটনায় যাতে ধর্ষকদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হয় এই দাবী করছি। এই ঘটনার বিচার দেখে যাতে আর কোন মেয়ে কে কেউ ধর্ষণ করার সাহস না পায়।

Comments

comments